“জনগণের ক্রয় ক্ষমতা কাংক্ষিত পর্যায় না আসার জন্যই বিদ্যুৎ খাতে ভূর্তকি দেয়া হচ্ছে” - বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রী

“জনগণের ক্রয় ক্ষমতা কাংক্ষিত পর্যায় না আসার জন্যই বিদ্যুৎ খাতে ভূর্তকি দেয়া হচ্ছে” - বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রী

ঢাকাঃ ১৫/০৭/২০১৭

বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ বলেছেন,জনগণের ক্রয় ক্ষমতা কাংক্ষিত পর্যায় না আসার জন্যই বিদ্যুৎ খাতে ভূর্তকি দেয়া হচ্ছে। জনগণদের স্বস্তি দেয়ার জন্যই লাইফ লাইন ট্যারিফ রাখা হয়েছে। লাভ-লোকসান –এর চিন্তা করা পল্লী বিদ্যুতায়ন বোর্ডের উচিত না। তৃণমূল পর্যায়ের জনগণদের বিদ্যুৎ সেবা প্রদান করার জন্যই এ প্রতিষ্ঠান সৃষ্টি করা হয়েছে।

প্রতিমন্ত্রী আজ ঢাকায় বাংলাদেশ পল্লী বিদ্যুতায়ন বোর্ডের সম্মেলন কক্ষে “ জেনারেল ম্যানেজার সম্মেলন-২০১৭” –এর সমাপণী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ সব কথা বলেন। জনগণের সাথে অমায়িক ব্যবহার করার গুরুত্ব আরোপ করে তিনি জনপ্রতিনিধিদের উন্নয়ন কার্যক্রমে সম্পৃক্ত করার জন্য জিএমদের প্রতি আহবান জানান। বিদ্যুতের দক্ষ ও সাশ্রয়ি ব্যবহারের জন্য জনসচেতনতামূলক বিশেষ পদক্ষেপ গ্রহণ করা প্রয়োজন।  বছরে ১% সিস্টেম লস কমানোর উদ্যোগ গ্রহণ করার আহবান জানিয়ে প্রতিমন্ত্রী বলেন, ১% সিস্টেম লস কমানো গেলে বাংলাদেশ পল্লী বিদ্যুতায়ন বোর্ডের এলাকায় ১৫০ কোটি টাকা সাশ্রয় হয়।

বাংলাদেশ পল্লী বিদ্যুতায়ন বোর্ডের চেয়ারম্যান মেজর জেনারেল মঈন উদ্দিন তাঁর উপস্থাপনায় বলেন, ৮০টি পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির মাধ্যমে ১ কোটি ৯২ লক্ষ গ্রাহকদের সেবা প্রদান করা হচ্ছে। পল্লী বিদ্যুতায়ন বোর্ডের এলাকায় বিদ্যুৎ সুবিধা ভোগী ৭২% এবং সিস্টেম লস ১১.৪৪% । শতভাগ বিদ্যুতায়ন উদ্বোধন হয়েছে ১৬ টি, কাজ সম্পন্ন করা হয়েছে ৩৪ টি, ডিসেম্বর ২০১৭ নাগাদ ১৬২ টি,ডিসেম্বর ২০১৮ নাগাদ ২৪৮ টি উপজেলায় সম্পূর্ণ হবে। চেয়ারম্যান জানান, সিস্টেম ওভারনলোডিং এর জন্য ১৮টি পল্লী বিদ্যুৎ সমিতিতে ১০৭ মেগাওয়াট ফোর্সড লোডশেডিং করতে হয়।

এ সময় অন্যান্যের মাঝে বিদ্যুৎ সচিব ডঃ আহমদ কায়কাউস ও পাওয়ার সেলের মহাপরিচালক মোহাম্মদ হোসেন বক্তব্য রাখেন।