“ক্লীন এনার্জির ব্যবহার বাড়ানোর উদ্যোগকে উৎসাহিত করা হবে” - বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রী

“ক্লীন এনার্জির ব্যবহার বাড়ানোর উদ্যোগকে উৎসাহিত করা হবে” - বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রী

ঢাকা-০৯.০৭.২০১৭

বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ বলেছেন, ক্লীন এনার্জির ব্যবহার বাড়ানোর উদ্যোগকে উৎসাহিত করা হবে। কয়লা থেকে বিদ্যুৎ উৎপাদনের প্রক্রিয়ায় কার্বন বা সালফার (বা সালফারের যৌগ) বা নাইট্রোজেন (বা নাইট্রোজেনের যৌগ) নিয়ন্ত্রিতভাবে নিঃসরণের বিষয়ে সরকার সজাগ। উন্নত প্রযুক্তি ব্যবহারের মাধ্যমে আরো সতর্ক থাকতে সংশ্লিষ্টদের নির্দেশ দেয়া হয়েছে। আমদানিকৃত বিদ্যুৎও ক্লীন এনার্জি হিসেবে পরিগণিত হয়।  
প্রতিমন্ত্রী, আজ বিদ্যুৎ ভবনে কাপ্তাইতে ৭.৪ মেগাওয়াট সোলার পাওয়ার নির্মানের লক্ষ্যে ইপিসি চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন।  তিনি বলেন, সোলার পার্ক করা হচ্ছে, সেখান থেকে সৌর বিদ্যুৎ উৎপাদন করা হবে। এ সময় তিনি সরকারের পাশাপাশি বেসরকারি সংস্থাকে নবায়নযোগ্য জ্বালানির উৎপাদন, ব্যবহার ও প্রসারে কাজ করার আহ্বান জানান।

বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ডের সচিব মীনা মাসহুদ উজ জামান এবং জেডটিই (ZTE) করপোরেশনের বাস্তবায়ন পরিচালক লি উই (Liu Wei) এ চুক্তি স্বাক্ষর করেন। গ্রীডে সংযোজিতব্য এ বিদ্যুৎ কেন্দ্রের ইপিসি কন্ট্রাক্টের মোট প্রায় ৯.৩৪ মিলিয়ন ডলার এবং প্রতি ইউনিট বিদ্যুতের উৎপাদন মূল্য ৫.৪৮ টাকা। এশিয়ান উন্নয়ন ব্যাংক এর আর্থিক সহায়তায় এ প্রকল্পটি করা হচ্ছে এবং জুলাই ২০১৮ সালের মধ্যে এটি বাস্তবায়িত হবে বলে আশা করা যাচ্ছে।

অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে বিদ্যুৎ সচিব ড. আহমদ কায়কাউস, পিডিবির চেয়ারম্যান খালেদ মাহমুদ     ও জেডটিই করপোরেশনের ভাইস প্রেসিডেন্ট ঝাং ইয়ানমেং (Zhang Yanmeng) বক্তব্য রাখেন।