“জ্বালানি নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে ‘কয়লা’ গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখবে” - বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রী

“জ্বালানি নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে ‘কয়লা’ গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখবে” - বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রী

ঢাকা-৩০.০৫.২০১৭

বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ বলেছেন, জ্বালানি নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে ‘কয়লা’ গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখবে। প্রাথমিক জ্বালানি হিসেবে কয়লা উন্নত বাংলাদেশ গড়তে অন্যতম নিয়ামক হিসেবে কাজ করবে।

প্রতিমন্ত্রী আজ সোনারগাও হোটেলে দীঘিপাড়া কয়লা খনি হতে কয়লা উত্তোলরেনর সম্ভাব্যতা জরিপ কার্যক্রম পরিচালনার জন্য চুক্তি অনুষ্টানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ সব কথা বলেন। এই সমীক্ষা প্রকল্প বাস্তবায়নের জন্য বড় পুকুরিয়া কোল মাইনিং কোম্পানি লিমিটেড এবং  MIBRAG Consulting International, GmbH-Anf-Strass, Germany, FUGRO Consult GmbH, Germany ও  Runge Pincook Minarco Limited, Australia-এর সমন্বয়ে  গঠিত একটি কনসোটিয়ামের মধ্যে এই চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়। এতে বড়পুকুরিয়ার পক্ষে চুক্তিতে স্বাক্ষর করেন কোম্পানিটির সচিব মো. আবুল কাশেম প্রাধানীয়া এবং MIBRAG এর পক্ষে প্রজেক্ট ম্যানেজার আমীর খন্দকার, FUGRO এর পক্ষে প্রকল্প পরিচালক রফ বল্টস (Rolf Baltes) ও Runge Pincook Minaroo Limited- এর পক্ষে সিমন আসকে ডুরান (Simon Askey Doran)।

এ সমীক্ষার আয়তন ২৪ বর্গ কিলোমিটার। অনুসন্ধানমূলক ড্রিলিং, ৩ডি সাইসমিক জরিপ, খনির নকশা এবং প্রকল্পের সম্ভাব্যতা যাচাই পূনর্বাসনের প্রয়োজনীয়তা নির্নয় এবং একটি পূনর্বাসন পরিকল্পনা প্রণয়ন, ভূতাত্বিক এবং ভুজলীয় অবস্থা নিরূপণ, কয়লা উত্তোলন, প্রকৃত মজুদ, বাৎসরিক উৎপাদন হার, এবং কয়লা খনির মেয়াদকাল নির্ণয় বিস্তারিত অর্থনৈতিক মূল্যায়ন এবং প্রকল্প বাণ্যিজিকভাবে লাভজনক কিনা তা নির্ণয়  করতেই এই সমীক্ষা। চুক্তির মেয়াদ ১ জুন ২০১৭ হতে ৩০ সেম্পেম্বর ২০১৯ পর্যন্ত অর্থাৎ ২৭ মাস।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, প্রাথমিক তথ্যানুযায়ী এখানে ৮৬৫ মিলিয়ন মেট্রিকটন কয়লার মজুদ রয়েছে যা বাণ্যিজিকভাবে উত্তোলন করা সম্ভব হলে এলাকার মানুষের আর্থসামজিকও জীবনযাত্রার মান উন্নয়নে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখবে। উন্নত প্রযুক্তির সাহায্যে দেশিয় কয়লা ব্যবহার করে পরিবেশ বান্ধব উন্নয়ন আমরা করতে সচেষ্ট থাকবো। জ্বালানি নিরাপত্তা যত দ্রুত নিশ্চিত করা যাবে, দেশের উন্নয়ন তত দ্রুত করা সম্ভব হবে। সম্মিলিত উদ্যোগে সমন্বিতভাবে দেশের উন্নয়নে কাজ করার জন্য তিনি এ সময় আহ্বান জানান।

অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মাঝে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রী মোস্তাফিজুর রহমান, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ বিভাগের সচিব নাজিম উদ্দিন চৌধুরী, জার্মান রাষ্ট্রদূত ড. থমাস প্রিঞ্জ (Dr. Thomas Priznz), অস্ট্রেলিয়ার রাষ্ট্রদূত মিজ জুলিয়া নিবলেট Ms. Julia Niblett), পেট্রোবাংলার চেযারম্যান আবুল মনসুর মো. ফয়েজুল্লাহ বক্তব্য রাখেন।