“জ্বালানির সাশ্রয়ি ব্যবহার বাড়াতে ইতিবাচক মনোভাব সৃজন করা প্রয়োজন” - বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রী

“জ্বালানির সাশ্রয়ি ব্যবহার বাড়াতে ইতিবাচক মনোভাব সৃজন করা প্রয়োজন” - বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রী

ঢাকা-০৫.০৩.২০১৭

বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ বলেছেন, জ্বালানির সাশ্রয়ি ব্যবহার বাড়াতে ইতিবাচক মনোভাব সৃজন  করা প্রয়োজন। সাশ্রয়ি জ্বালানির স্বপক্ষে জনসম্পৃক্ততা বাড়ানো গেলে দ্রুত সাফল্য পাওয়া যাবে। সংশ্লিষ্ট বিশেষজ্ঞদের বিষয়টি ব্যাপক প্রচার করা প্রয়োজন।

প্রতিমন্ত্রী, আজ ঢাকায় International Energy Efficiency Day 2017 ২০১৭ উপলক্ষে “Towards and Energy Efficient Bangladesh” শীর্ষক সেমিনারে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন। প্রাকৃতিক গ্যাস ও তেল অনুসন্ধান, প্রাকৃতিক গ্যাসের ব্যবহারের উৎকর্ষতা, জ্বালানির যুক্তিসঙ্গত মূল্য, সাশ্রয়ি জ্বালানি ব্যবহারের নানাবিধ প্রোগ্রাম, এলপিজি, এলএনজি, কয়লাসহ বহুবিধ উৎস হতে সংগৃহিত জ্বালানির বহুমুখি ব্যবহার, সরকারি দপ্তরসমূহের কারিগরি ও প্রাতিষ্ঠানিক  সক্ষমতা বৃদ্ধি, বৈদেশিক ও যৌথ বিনিয়োগে উৎসাহ প্রদান প্রভৃতি বিষয় প্রতিমন্ত্রী বক্তব্যে উঠে আসে। তিনি বলেন,  স্রেডা প্রাতিষ্ঠানিকভাবে সরকারি ও বেসরকারি প্রতিষ্ঠানসহ সকল স্তরে সাশ্রয়ি জ্বালানি ও জ্বালানির সাশ্রয়ি ব্যবহার নিয়ে কাজ করছে।

আজকের এ সেমিনার (i) International Best Practices in Energy Efficiency Implementation, (ii) National Energy Efficiency Policy for Sustainable Economic Growth, (iii) Championing Energy Efficiency in the industrial Sector of Bangladesh-এই তিনটি বিষয়ে বিশেষজ্ঞরা বিশ্বের বিভিন্ন দেশের সাপেক্ষে বাংলাদেশের অবস্থান নিয়ে আলোচনা করেন।  এতে চীন, সিংগাপুর, ইন্ডিয়া ও বাংলাদেশের  জ্বালানি বিশেষজ্ঞরা মতামত ও দৃষ্টান্ত উপস্থাপন করেন।
সেমিনারের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানেThe Institute for Policy, Advocacy and Governancc (IPAG)- এর চেয়ারম্যান প্রফেসর সৈয়দ মূনির খসরু‘র সভাপতিত্বে অন্যান্যের মাঝে জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ বিভাগের সচিব নাজিমউদ্দিন চৌধুরী বক্তব্য রাখেন ।